জুলাই ২৪, ২০২৪ - ৩:৩০ পূর্বাহ্ণ
Homeআন্তর্জাতিকযুক্তরাষ্ট্রে প্রচন্ড তাপদাহে ১৩ কোটি মানুষের জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত

যুক্তরাষ্ট্রে প্রচন্ড তাপদাহে ১৩ কোটি মানুষের জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত

spot_img

ইমা এলিস, নিউ ইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্রে প্রচন্ড তাপদাহে অন্তত ১৩ কোটি মানুষ এর ঝুঁকিপুর্ণ হয়ে পড়েছে। আবহাওয়া সংশ্লিষ্টদের বরাতে বলা হয়েছে আগামী কয়েকদিন দেশটির পূর্ব থেকে পশ্চিম উপকূলীয় এলাকাগুলোয় তীব্র তাপপ্রবাহ অনুভূত হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিসের আবহাওয়াবিদ জ্যাকব অ্যাশারম্যানের বরাতে বলা হচ্ছে, প্রশান্ত মহাসাগরের উত্তর-পশ্চিম, মধ্য-আটলান্টিক এবং উত্তর-পূর্বের কিছু এলাকায় তাপ ও আর্দ্রতা ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস অতিক্রম করতে পারে।

উত্তর-পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকাগুলোর মধ্যে ওরেগন স্টেটের ইউজিন, পোর্টল্যান্ড ও সালেম শহরে তাপমাত্রা আগের সব রেকর্ড ভেঙে ফেলতে পারে বলেও আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন ওই আবহাওয়াবিদ। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের আরো অন্তত কয়েক ডজন শহর অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে এ তালিকায়।

ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিসের বরাতে আল জাজিরা বলছে, চলতি সপ্তাহেও যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে তাপমাত্রা বৃদ্ধি অব্যাহত থাকার আশঙ্কা রয়েছে। এরই মধ্যে দেশটির বেশকিছু অঞ্চলে তাপপ্রবাহের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। দক্ষিণ-পশ্চিমের এলাকাগুলোয় এ সতর্কতা আগামী শুক্রবার পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। আর দেশটির পশ্চিমাঞ্চলের গড় তাপমাত্রা আগামী সপ্তাহে বাড়তে পারে স্থানভেদে ৮-১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত। গড়ের চেয়ে বেশি তাপমাত্রা থাকতে পারে দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতেও। ওইসব এলাকার মধ্যে বাল্টিমোর ও মেরিল্যান্ডে তাপমাত্রার পারদ উঠতে পারে ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত।

এদিকে গত জুন থেকেই তীব্র তাপপ্রবাহের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে দেশটির মিডওয়েস্টার্ন এলাকাগুলো। ওইসব এলাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও প্রায় ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছুঁইছু্ঁই। আবহাওয়াবিদরা এ চরমভাবাপন্ন তাপমাত্রার জন্য সেখানকার বাতাসের জলীয়বাষ্প ও তাপগম্বুজকে দায়ী করছেন।

পরিস্থিতি বিবেচনায় নাগরিকদের প্রচুর পানি পান করাসহ রোদ এড়িয়ে চলা ও সম্ভব হলে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত স্থানে অবস্থানের পরামর্শ দিয়েছেন দেশটির আবহাওয়া অফিসসংশ্লিষ্টরা। শিশু ও পোষা প্রাণীদের যানবাহনে পরিবহনের সময় বাড়তি সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়েছে বাল্টিমোর শহরের জাতীয় আবহাওয়া পরিষেবা।

এদিকে তাপপ্রবাহের মধ্যে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকাগুলোয় দাবানলের ঝুঁকির কথা জানিয়েছে দেশটির ফায়ার সার্ভিস। এরই মধ্যে ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের দুটি এলাকায় বিচ্ছিন্ন দুটি দাবানলে সাড়ে চার হাজার একরের বেশি বনাঞ্চল ভস্ম হয়ে গেছে। ক্যালিফোর্নিয়ার বাট কাউন্টিতে মঙ্গলবার শুরু হওয়া দাবানলে সেখানকার ৩ হাজার ৮৪০ একর বনাঞ্চল পুড়ে গেছে। এ অগ্নিকাণ্ডকে বলা হচ্ছে থম্পসন ফায়ার। এছাড়া একই অঙ্গরাজ্যের মারিপোসা এলাকার কাছের একটি উদ্যানেও দাবানল হয়েছে। এ দাবানলকে বলা হচ্ছে ফ্রেঞ্চ ফায়ার। ফ্রেঞ্চ ফায়ারে এরই মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রায় ৮০০ একর বনাঞ্চল। তবে বাতাসের প্রবাহ কম থাকার সুযোগে এ আগুনের খুব সামান্য হলেও একটা অংশ নিয়ন্ত্রণে আনতে পেরেছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। এসব দাবানল দেশটির তীব্র তাপপ্রবাহকে প্রভাবিত করছে।

এছাড়া দক্ষিণ টেক্সাসে আগামী সপ্তাহে বেরিল নামে একটি হারিকেন আঘাত হানতে পারে বলে পূর্বাভাস করা হয়েছে। এর প্রভাবে টেক্সাস ও আশপাশের এলাকায় ভারি বৃষ্টিপাত হতে পারে।

অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ