জুলাই ২৪, ২০২৪ - ২:৪২ পূর্বাহ্ণ
Homeসারাদেশ ও রাজনীতিরাজনীতিদায়িত্ব ফিরে পেলেন শেরপুর পৌর মেয়র জানে আলম খোকা

দায়িত্ব ফিরে পেলেন শেরপুর পৌর মেয়র জানে আলম খোকা

spot_img

বগুড়া প্রতিনিধি: শেরপুর জনতার মেয়র নামে পরিচিত আলহাজ্ব জানে আলম খোকা গত ৩ জুলাই স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব আব্দুর রহমানের স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে মেয়রের পদ ফিরে পাওয়ার আদেশ দেওয়া হয়। প্রায় দুই মাস পর নিজের দায়িত্ব ফিরে পেলেন বগুড়ার শেরপুর পৌরসভার মেয়র জানে আলম খোকা ও ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফিরোজ আহমেদ জুয়েল।

বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মেয়র ও কাউন্সিলর নিজ নিজ পৌরসভার দায়িত্ব গ্রাহণ করেন। গত ১২ মে তাদেরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। হাই কোর্টের আদেশের প্রেক্ষিতেই তাদেরকে স্বপদে বহাল রাখার এ আদেশ দেয় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শেরপুর পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী ও ভারপ্রাপ্ত পৌর নির্বাহী কর্মকর্তা ফয়জুল ইসলাম। এসময় পৌরসভার কাউন্সিলরগণ উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, শেরপুর পৌরসভার সান্যালপাড়া এলাকার বাসিন্দা নাজমুল হক লুলু ২০২৩ সালের ১৬ এপ্রিল স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দেন।

তারই প্রেক্ষিতে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, শেরপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ¦ জানে আলম খোকা বিধি বহির্ভূতভাবে বাসটার্মিনালের ২০২০ এবং ২০২১ সালে ইজারা মওকুফ, অনিয়মতান্ত্রিকভাবে মাস্টাররোলে কর্মচারী নিয়োগ, জীপ গাড়ি মেরামতের নামে অতিরিক্ত বিল প্রদান, ২২৮টি দোকান বরাদ্দ প্রদান না করা, পৌরসভার বিভিন্ন ক্রয়ে দুর্নীতি ও অনিয়ম, পৌরসভার গৃহকর এ্যাসেসমেন্টে দুর্নীতি, ইমারত ও ভূমির ওপর অতিরিক্ত কর আদায় সংক্রান্ত আনীত অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। অভিযোগসমূহ তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩২ (১) (খ) (ঘ) এবং (২) অনুযায়ী তাকে মেয়র পদ হতে অপসারণের কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় স্থানীয় সরকার ( পৌরসভা) আইন ২০০৯ এর ধারা ৩১ (১) অনুযায়ী কোনো পৌরসভার মেয়রের বিরুদ্ধে অপসারণের কার্যক্রম শুরু করা হলে অথবা ফৌজদারি মামলার অভিযোগপত্র বিজ্ঞ আদালতে গৃহিত হলে, সেক্ষেত্রে নির্ধারিত কর্তৃপক্ষের বিবেচনায় মেয়র কর্তৃক ক্ষমতা প্রয়োগ পৌরসভার স্বার্থের পরিপন্থী অথবা প্রশাসনিক দৃষ্টিকোণে সমীচীন নয় মর্মে সরকার মনে করে। সেতুতে স্থানীয় সরকার ( পৌরসভা) আইন ২০০৯ এর ধারা ৩১ (১) অনুযায়ী শেরপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব জানে আলম খোকাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে মর্মে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে। এদিকে একইদিনে অপর আরেক প্রজ্ঞাপনে পৌরসভার প্রশাসনিক ও দাপ্তরিক কাজের সুবিধার্থে ‘মেয়রের আর্থিক ক্ষমতা’ পৌরসভার প্যানেল-১ মেয়র নাজমুল আলম খোকনকে অর্পন করা হয়।

এছাড়াও সোমবার (১৩ মে) স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব মো. আবদুর রহমান স্বাক্ষরিত আরেকটি প্রজ্ঞাপনে সাত লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে শেরপুর পৌরসভার পৌর ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ফিরোজ আহমেদ জুয়েলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছিল।

দায়িত্ব গ্রহণ করার পর পৌর মেয়র জানে আলম খোকা বলেন, পৌর নাগরিকগণ আমাকে বিপুল ভোট নির্বাচিত করে মেয়রের দায়িত্ব দিয়েছে। কিন্তু একটি মহল ঈর্ষান্বিত হয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনেছে। মহামান্য হাইকোর্টের আদেশে আমি আবার ফিরে এসেছি। জনগণকে সাথে নিয়েই সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করা হবে।

অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ