Corporate Sangbad | Online Bangla NewsPaper
আন্তর্জাতিক

যুক্তরাষ্ট্রে কোন ভাবেই থামানো যাচ্ছে না বন্দুক হামলা

ইমা এলিস, নিউ ইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক হামলা থামাতে আইনপ্রণেতাগণ মরিয়া হয়ে উঠলেও কোন ভাবেই তা থামানো যাচ্ছে না। প্রায় প্রতিদিনেই কোথাও না কোথাও ঘটছে বন্দুক হামলার ঘটনা। এ খবর জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম বাংলা প্রেস।
চলতি বছরের প্রথম ২৩ দিনেই ৩৬ বন্দুক হামলার ঘটনায় ৫৯ ব্যক্তির মৃত্যু ঘটেছে। আহত হয়েছে অনেক। এ ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছেন ম্ররকিন প্রশাসন।

ক্যালিফোর্নিয়ায় এক বৃদ্ধের এলোপাতাড়ি গুলিতে ১০ জন নিহত হওয়ার প্রাক্কালে এই তথ্য জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের গান ভায়োলেন্স আর্কাইভ। যুক্তরাষ্ট্রের গান ভায়োলেন্স আর্কাইভের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছেন, ২০২১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে ৬৯১টি বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটে। এতে প্রাণ যায় অন্তত ৭০৬ জনের। আহত হন ১১৫ জন। ২০২২ সালে ৬৪৮টি বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটে। এসব হামলায় ৬৭৩ জন নিহত এবং কয়েক শ আহত হয়েছেন। গত বছরের ১৪ মে নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের বাফেলো শহরের একটি সুপারশপে ভয়াবহ হামলায় নিহত হন অন্তত ১০ জন। একই মাসে টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের ইউভালদে শহরের একটি স্কুলে আরেকটি বড় হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ২২ জনের প্রাণহানি ঘটে। চলতি বছরের শুরু থেকে গতকাল সোমবার পর্যন্ত ৩৬টি হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন ৫৯ জন।

বন্দুক সহিংসতা বন্ধে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হলেও দেশটিতে এর কোনো প্রভাব পড়ছে না। প্রসঙ্গত, জো বাইডেন ক্ষমতায় আসার পর বন্দুক সহিংসতা কমাতে অনেক পদক্ষেপ নিলেও দেশটিতে আশঙ্কাজনকহারে বেড়ে চলেছে বন্দুক সহিংসতা। রীতিমত বন্দুক হামলার দেশে পরিণত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রতিদিনই দেশটির কোথাও না কোথাও হামলার খবর পাওয়া যায়।

বিবিসি জানায়, ক্যালিফোর্নিয়ায় একটি নাচের স্টুডিওতে গুলির ঘটনায় জড়িত হামলাকারী নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। হামলাকারী ৭২ বছর বয়সি একজন এশিয়ান যার নাম হু ক্যানন ট্র্যান। পুলিশ জানিয়েছে, হামলাকারী একটি সাদা রঙের ভ্যানের মধ্যে নিজেই নিজেকে গুলি করেছে। এর আগে রবিবার ঐ ভ্যানটিকে ঘিরে রেখেছিল পুলিশ। উইওন নিউজ।

আরো খবর »

বাইডেনের অভিবাসন নীতি ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্রের ২০ অঙ্গরাজ্যে মামলা

Tanvina

ফিলিপাইনের আরও ৪ সামরিক ঘাঁটি ব্যবহার করবে যুক্তরাষ্ট্র

Tanvina

৮০ বছর পর ফের জার্মান ট্যাংকের সম্মুখীন: পুতিন

Tanvina