অর্থ-বাণিজ্য

বেনাপোলে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস-২০২২ পালিত

বেনাপোল প্রতিনিধি : আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস উপলক্ষে যথাযোগ্য মর্যাদা ও নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে বেনাপোল কাস্টমস হাউজে সেমিনার ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (২৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় কাস্টমস ক্লাব হল রুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এবারের কাস্টমস দিবসের মূল প্রতিপাদ্য ‘তথ্য সংস্কৃতি বিকাশ এবং তথ্য ইকোসিস্টেম বিনির্মাণের মাধ্যমে ডিজিটাল কাস্টমসের সম্প্রসারণ’। এতে তিনটি বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে, ডিজিটাল কাস্টমসের সম্প্রসারণ, তথ্য-উপাত্ত চর্চা ও তথ্যপ্রতিবেশ। অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর করোনার কারনে অনুষ্ঠান সীমিত করা হয়েছে।

বেনাপোল কাস্টম হাউসের কমিশনার মো: আজিজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম কমিশনার নুসরাত জাহান এর সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্টিয়ারিং কমিটির (আঞ্চলিক) আহবায়ক ও যশোর কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের কমিশনার মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন। মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন উপ কমিশনার এইচ এম আহসানুল কবির।

কাস্টমস ও ভ্যাটের উপর আলোচনা করেন যশোর কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের যুগ্ম কমিশনার কমিশনার-নাহিদ নওশাদ মুকুল। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বেনাপোল স্থল বন্দরের উপ পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবীর তরফদার, বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন, সাধারন সম্পাদক এমদাদুল হক লতা, সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব শামছুর রহমান।

বেনাপোল কাস্টম কমিশনার মোঃ আজিজুর রহমান ওয়ার্ল্ড কাস্টমস অর্গানাইজেশন (ডাব্লিউসিও) থেকে সার্টিফিকেট অফ মেরিট-২০২২ পদক পাওয়ায় অনুষ্ঠানের পক্ষ থেকে তাকে ফুলের শুভেচ্ছা এবং ক্রেস্ট দিয়ে অভিনন্দন জানানো হয়। অনুষ্ঠানে কাস্টম হাউজের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সি এন্ডএফ ব্যবসায়ী ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রতি বছরের মতো এবারও বাংলাদেশসহ ওয়ার্ল্ড কাস্টমস অরগানাইজেশনের (ডব্লিউসিও) সদস্যভুক্ত ১৮৩টি দেশে একযোগে দিবসটি উদযাপন করা হচ্ছে। ২০০৯ সাল থেকে ওয়ার্ল্ড কাস্টমস অরগানাজেশন ২৬ জানুয়ারিকে কাস্টমস দিবস হিসেবে ঘোষণা করার পর থেকে বাংলাদেশ দিবসটি উদযাপন করছে।

অনুষ্ঠানে যশোর কাস্টম এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের কমিশনার মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, কাস্টমস হচ্ছে একটি দেশের সার্বভৌমত্ব চর্চার অন্যতম প্রতীক। এই কাস্টমসের মাধ্যমে কোনো দেশের সীমানায় বৈধভাবে কোনো লোক যাতায়াতের বা কোনো পণ্যের গমনাগমন সম্পন্ন হয়। মূলত বিমানবন্দর, সমুদ্র, স্থলবন্দর ও নদীবন্দরসমূহে কাস্টমসের কার্যক্রম পরিচালিত হয়। এ দায়িত্বটি পালন করার জন্য স্ব-স্ব দেশের কাস্টমস এজেন্সি নিয়োজিত থাকে। বাংলাদেশে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অধীন বাংলাদেশ কাস্টমস বিভাগ এই গুরুদায়িত্বটি পালন করছে। রাজস্ব আদায় এবং প্রদানে আজ যে সকল পণ্য আমদানি-রপ্তানিকারক, সিএন্ডএফ ব্যবসায়ীবৃন্দ এবং কাষ্টম কর্মকর্তা/কর্মচারী দেশের অন্যতম এই প্রতিষ্ঠানে শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন, আমি তাদেরকে আজকের এই শুভদিনে শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন জানাই।

আরো খবর »

সাকিবের স্বর্ণের দুই কোম্পানির নাম প‌রিবর্ত‌নের পরামর্শ বিএসইসি’র

Arif Hasan

ডলা‌র সংকট কাটা‌তে রেমিট্যান্সে প্রণোদনা ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব

Arif Hasan

পটুয়াখালীতে শিল্প ও বাণিজ্য মেলার শুভ উদ্বোধন