আন্তর্জাতিক

যুক্তরাষ্ট্রে বিমানবন্দরের কাছে ফাইভজি চালু হলে বিমান চলাচলে ব্যাঘাত ঘটবে

নিজস্ব প্রতিবেদক : যুক্তরাষ্ট্রে বিমানবন্দর সংলগ্ন এলাকাগুলোতে ফাইভজি সেবা চালু হলে বিমান চলাচলে ব্যাঘাত ঘটবে। বিমানে ব্যবহৃত বেতার তরঙ্গ যথাযথভাবে কাজ করবে না। বিশেষত অবতরণের সময় বিমান চলাচলের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হবে বলে আশঙ্কা করছেন মার্কিন এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে বিশ্বজুড়ে এয়ারলাইন্সগুলোর মধ্যে উদ্বেগও দেখা দিয়েছে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম বাংলা প্রেস এ খবর জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ১০টি বড় এয়ারলাইন্স সতর্ক করেছে, ফাইভজি চালু করা হলে বিমান ফ্লাইট চলাচলে বড় ধরনের ব্যাঘাত ঘটবে। কোম্পানিগুলো বলছে, পরিকল্পনামাফিক বুধবার থেকে মুঠোফোনে ফাইভজি চালু করার যে কথা রয়েছে, সেটা করা হলে ‘এড়ানো যাবে না, এমন একটি সম্পূর্ণ অর্থনৈতিক বিপর্যয়’ দেখা দেবে।

উদ্বেগ জানিয়ে মার্কিন পরিবহনমন্ত্রী, ফেডারেল অ্যাভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন, ফেডারেল কমিউনিকেশনস কমিশনের চেয়ারম্যান, ন্যাশনাল ইকোনমিক কাউন্সিলের পরিচালককে চিঠি দিয়েছেন আমেরিকান এয়ারলাইন্স, ডেল্টা এয়ারলাইন্স, ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সসহ ১০টি এয়ারলাইন্সের প্রধান নির্বাহী। বিমানের সময়সূচি ও চলাচলের জন্য বিমানবন্দরে থাকা বিমানের সময়সূচি সমন্বয় করা হচ্ছে। এয়ারলাইন্সগুলোর শঙ্কা, বিমানবন্দরের কাছে ফাইভজি চালু হলে সুরক্ষাব্যবস্থায় মারাত্মক প্রভাব ফেলবে।

উল্লেখ্য, ফাইভজি মূলত বেতার তরঙ্গের ওপর নির্ভরশীল। যুক্তরাষ্ট্রে ফাইভজি সেবা দেওয়ার জন্য যে স্পেকট্রামটি বরাদ্দ করা হয়েছে, সেটি সি-ব্যান্ড নামে পরিচিত। এ তরঙ্গের অবস্থান উড়োজাহাজে উচ্চতা মাপার জন্য ব্যবহৃত রেডিও তরঙ্গের খুব কাছাকাছি। এর মাধ্যমেই ফ্লাইট উড্ডয়ন ও অবতরণের দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়। এয়ারলাইন্সগুলো শঙ্কা করছে, ফাইভজির জন্য ব্যবহৃত বেতার তরঙ্গ উড়োজাহাজে ব্যবহৃত তরঙ্গের খুব কাছাকাছি হওয়ায় ফাইভজি চালু হলে উড়োজাহাজে ব্যবহৃত বেতার তরঙ্গ যথাযথভাবে কাজ করবে না। এতে বিশেষত অবতরণের সময় ফ্লাইট চলাচলের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হবে।

স্থানীয় সময় বুধবার মার্কিন বিমানবন্দরগুলোর কাছে ফাইভ-জি চালুর পরিকল্পনা ছিল দুই কোম্পানি এটিঅ্যান্ডটি ও ভেরাইজনের। মার্কিন বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষকে যৌথভাবে দেওয়া চিঠিতে দেশটির ১০টি এয়ারলাইন্সের প্রধান নির্বাহীরা বলেছেন, উড়োজাহাজে বিশ্বজুড়ে যাত্রী পরিবহন, পণ্য পরিবহন, সরবরাহ ব্যবস্থা, প্রয়োজনীয় ওষুধ ও চিকিৎসা সরবরাহের মতো কার্যক্রম চালাতে উল্লেখযোগ্য ব্যাঘাত এড়াতে অবিলম্বে হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।

নিউ ইয়র্কের ফেডারেল কোর্টের বিচারক হলেন বাংলাদেশি নুসরাত

করোনা মহামারি অবসানের পথে নয়: ডব্লিউএইচও

আরো খবর »

ভারতে প্রতি কেজি পেয়াজ ৩ রুপি, চাষীদের আর্তনাদ !

Arif Hasan

স্মার্টফোন কিনে না দেওয়ায় সিলিং ফ্যানে হাত ঢুকালো তরুণী

Arif Hasan

শিশুদের বুকে জড়ানো অবস্থায় উদ্ধার হয় শিক্ষকের লাশ

Arif Hasan