Corporate Sangbad | Online Bangla NewsPaper BD
জাতীয় শিরোনাম শীর্ষ সংবাদ

পদত্যাগ করলেন ডা. মুরাদ হাসান

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশের পর পদত্যাগপত্র সচিবালয়ে নিজ দফ্তরে পাঠিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। যথাযথ প্রক্রিয়ায় মধ্যে সেটি মন্ত্রীপরিষদ বিভাগে জমা হবে বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুরে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে তিনি তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিতে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।

জানা গেছে, প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান চট্টগ্রামে অবস্থান করায় মন্ত্রণালয়ের একজন প্রতিনিধি তার পক্ষে পদত্যাগপত্র জমা দেন। ইতোমধ্যে তার পদত্যাগপত্র ইমেলের মাধ্যমে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের মাধ্যমে তা প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠানো হবে।

এর আগে গতকাল সোমবার সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অসৌজন্যমূলক বক্তব্য দেওয়ায় তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে আজ মঙ্গলবারের মধ্যেই মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ডা. মুরাদ হাসানের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, সোমবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয়েছে এবং আমি আজ রাত ৮টায় প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে বার্তাটি পৌঁছে দিয়েছি।

এদিকে, তথ্য প্রতিমন্ত্রীর ‘নারী বিদ্বেষমূলক’ বক্তব্যে দল বা সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, এটা তার ব্যক্তিগত মন্তব্য। আমাদের দল বা সরকারের কোনো বক্তব্য বা মন্তব্য নয়। এরপরও এ ধরনের বক্তব্য কেন সে দিল, অবশ্যই আমি বিষয়টি নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করব।

এরপর সোমবার রাতে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের কথা জানালেন ওবায়দুল কাদের।

প্রসঙ্গত, দুদিন আগে একটি অনলাইন টকশোয় এসে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, তারেক রহমানের মেয়ে জাইমা রহমানকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান।

খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মুরাদ হাসানের বক্তব্য–সংবলিত একটি ভিডিও সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে তিনি খালেদা জিয়ার নাতনি জাইমা রহমান সম্পর্কে ‘অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ’ মন্তব্য করেছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে। তাঁর ওই বক্তব্যের সমালোচনায় সোচ্চার হয়েছিলেন নারী অধিকারকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণি–পেশার মানুষ। প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে তাঁকে অব্যাহতি দেওয়ার দাবিও উঠেছিল।

এ নিয়ে তুমুল আলোচনার মধ্যেই ডা. মুরাদ হাসানের সঙ্গে ঢালিউডের চিত্রনায়ক ইমন ও মাহিয়া মাহির মধ্যকার কথোপকথনের একটি কল রেকর্ড ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ওই কল রেকর্ড ক্লিপটিতে শোনা যায়, মাহিকে তাৎক্ষণিক তার কাছে যেতে বলছেন ডা. মুরাদ হাসান। নায়িকা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাকে অশ্লীল ভাষায় গালাগাল করেন এবং হুমকি দেন তিনি।

উল্লেখ্য, ডা. মো. মুরাদ হাসান একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জামালপুর-৪ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৮ সালেও তিনি একই আসনে থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০১৮ সালের নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর তাকে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ দফায় সরকার গঠনের পাঁচ মাসের মাথায় ২০১৯ সালের মে মাসে স্বাস্থ্য থেকে সরিয়ে মুরাদকে তথ্য প্রতিমন্ত্রী করা হয়।

৪৭ বছর বয়সী মুরাদ হাসান তার নিজের এলাকা জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের ‘স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক’। তার বাবা অ্যাডভোকেট মতিয়র রহমান তালুকদার ছিলেন জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি।

আরো খবর »

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের শুভেচ্ছা

উজ্জ্বল হোসাইন

ইউক্রেনে অভিযান চালালে তা রাশিয়ার জন্য বিপর্যয়কর হবে

উজ্জ্বল হোসাইন

শান্তিরক্ষা মিশনে র‍্যাবকে নিষিদ্ধের দাবি জানিয়ে জাতিসংঘে ১২ সংস্থার চিঠি

উজ্জ্বল হোসাইন