Corporate Sangbad | Online Bangla NewsPaper BD
বিনোদন

আমার দোষ ছিল না, শুধু পরিস্থিতির শিকার: ভিডিও বার্তায় মাহি

বিনোদন ডেস্ক : চলচ্চিত্র অভিনেতা ইমন ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের ফোনালাপের একটি রেকর্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এখন ভাইরাল। এবার এ ফোনালাপ ফাঁস নিয়ে মুখ খুলেছেন নায়িকা মাহি।

গতকাল সোমবার রাত ৯টা ৩১ মিনিটে ওমরাহ করতে সৌদি আরবে অবস্থান করা মাহি তার ফেসবুক আইডিতে দুই মিনিট ৩০ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করেছেন। সেখানে মাহি নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

মাহি বলেন, ‘আমার কোনো দোষ ছিল না, আমি শুধু পরিস্থিতির শিকার।’ ওই ভিডিও’র ক্যাপশনে মাহি লিখেছেন, বিকৃত এবং কুরুচিপূর্ণ ব্যবহার ও ভাষার প্রতিত্তোরের ভাষা আমার জানা ছিল না, নম্রতা আমার পারিবারিক শিক্ষা…।

ভিডিওতে মাহিয়া মাহি বলেন, ‘আমি এখন পবিত্র হারাম শরিফে আছি। ওমরাহ পালন করছি। আমি যেটা বলার জন্য ভিডিওটা করছি। আমি সেদিনও বলেছিলাম। আমার বিকৃত এবং কুরুচিপূর্ণ ব্যবহার ও ভাষার প্রতি-উত্তরের ভাষা আমার জানা ছিল না। দুই বছর আগের ঘটনা। তখন আমি শুধু আল্লাহর কাছে বলেছিলাম।’ আজকেও আমি ভীষণভাবে বিব্রত এবং একবার আমি ছোট হয়েছি দেশবাসীর কাছে, আরও একবার ছোট হলাম। কিন্তু আপনারা একটু চিন্তা করে দেখবেন এই ভাষার প্রতিউত্তর আমার আসলে কী দেওয়া উচিত ছিল আদৌ কিছু বলার ভাষা সেদিন আমার ছিল না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার নিজের মতো করে যতটুকু পাশ কাটিয়ে যাওয়া উচিত ততটুকু পাশ কাটিয়ে গিয়েছি। ঠিক দুই বছর আগের একটা ঘটনা ছিল। আমি বরাবরের মতো সব সময় আমি আল্লাহর কাছে বলি, আল্লাহ আমি কষ্ট পেয়েছি। যার মাধ্যমে কষ্ট পেয়েছি কোনো না কোনো একদিন তার রেজাল্ট তিনি পাবেন, তিনি ঠিকই তা পেয়েছেন। তো সেটা প্রমাণিত, আলহামদুলিল্লাহ।’

সাংবাদিকদের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ‘সাংবাদিক ভাইদের সরি, আমি সবার ফোন রিসিভ করছি না। এ বিষয়টা নিয়ে এখানে কিছু বলার মতো মানসিকতা আমার আপাতত নেই। আপনারা আমার হয়ে আমার জায়গা থেকে চিন্তা করবেন যে আমি দোষী কি দোষী না, আমি এতটুকুই বলব। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন আল্লাহ যেন আমাদের ওমরাটা কবুল করেন। আল্লাহ সাক্ষী আমার কোনো দোষ ছিল না।’

উল্লেখ্য, ভাইরাল হওয়া সেই অডিও ক্লিপটিতে মুরাদ হাসান ফোনটি করেন চিত্রনায়ক ইমনকে। তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, তারা এখন কোথায় আছে। পরে এক পর্যায়ে মুরাদ হাসান জানতে চান, তার সঙ্গে কে কে আছে?

ইমন তাকে জানান, এক পরিচালকের সঙ্গে তিনি ও মাহিয়া মাহি কথা বলছেন। পরে ফোনটি মাহিকে দেন ইমন। তখন মাহীর সঙ্গে অশ্লীল ভাষায় কথা বলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী। সেই সঙ্গে মাহিকে নিয়ে হোটেল সোনারগাঁওয়ে দেখা করতে বলেন প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। চিত্রনায়ক ইমনকে তিনি বলেন ঘাড় ধরে যেন মাহিকে তার কাছে নিয়ে যান।

ভাইরাল হওয়া ক্লিপটি তার স্বীকার করে ইমন বলেন, ফাঁস হওয়া ফোনালাপটি সত্যি। তবে এটি সাম্প্রতিক নয়, বছর দুই আগের। এ বিষয়ে ইত্তেফাক অনলাইনের সঙ্গে কথা বলেন চিত্রনায়ক ইমন।

ইমন বলেন, ‘একজন মন্ত্রী যখন আমাকে কল দেন আমি তো ধরবোই তাই না? কোনো ইনটেনশন নিয়ে আমি কথা বলেনি। উনি আসলে মাহীর সঙ্গে কি কি কথা বলছেন আমি তো জানতাম না। কারণ ফোনটি লাউড স্পিকারে ছিলো না। যদিও মাহীও আমাকে কিছু জানায়নি। কারণ আমরা আসলে সিনেমার মহরত নিয়ে কথা বলছিলাম। এখন অডিওটা শুনে আমি জানতে পারলাম সেদিন মাহি কতোটা বিব্রত ছিলো।’

ইমন বলেন, আপনারা তো অডিওটা শুনেছেন। আসলে আমি তো উনার মতো লোকের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতে পারি না। তাই উনার কথা মতো আমি বাধ্য হয়ে বলেছি, ‘হ্যাঁ, ভাই আসতেছি। দেখছি ভাই।’

ইমনের দাবি, একজন তথ্য প্রতিমন্ত্রী যেকোনও শিল্পীকেই ফোন দিতেই পারেন। কিন্তু এমন আচরণ অগ্রহণযোগ্য। তিনি নিজেও হতাশ মাহির সঙ্গে প্রতিমন্ত্রীর ফোনালাপ শুনে।

আরো খবর »

কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেলের ২২ দফা ইশতেহার ঘোষণা

উজ্জ্বল হোসাইন

হঠাৎ প্রকাশ্যে পপি, যা বললেন ভিডিও বার্তায়

উজ্জ্বল হোসাইন

পদ্মশ্রী প্রত্যাখ্যান করলেন সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়

উজ্জ্বল হোসাইন