Corporate Sangbad | Online Bangla NewsPaper BD
জাতীয় শিরোনাম শীর্ষ সংবাদ

এবার মেয়র পদ থেকেও বরখাস্ত হলেন জাহাঙ্গীর

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগ থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার পর এবার গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়রের পদ থেকেও সাময়িকভাবে বরখাস্ত হলেন জাহাঙ্গীর আলম। এছাড়া গাজীপুর সিটি করপোরেশনে তিন সদস্যের প্যানেল গঠন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) দুপুরে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এই তথ্য জানিয়েছেন।

তাজুল ইসলাম বলেন, মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে জায়গা দখল, মার্কেট দখলসহ অনেকগুলো অভিযোগ এসেছে। সেগুলোর বিষয়ে মন্ত্রণালয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। নিয়মানুযায়ী কোনো মেয়রের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ আমলে নেওয়া হলে তাকে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিধান রয়েছে। আমরা তাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছি।

মন্ত্রী আরও জানান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনে এখন তিন সদস্যের প্যানেল করে দেওয়া হয়েছে। তিনজনের প্যানেলে রয়েছেন আসাদুর রহমান কিরণ, আবদুল আলিম মোল্লা ও আয়েশা আক্তার। জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে আসাদুর রহমান কিরণ মেয়রের দায়িত্ব পাচ্ছেন।

এর আগে গত সোমবার জাহাঙ্গীর আলমের মেয়র পদ থাকবেন কিনা সে বিষয়ে দু’একদিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা জানিয়েছিলেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

গত ১৯ নভেম্বর প্রাথমিক সদস্যপদ বাতিলসহ আওয়ামী লীগ থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয় গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে। সেইসঙ্গে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশও দেয়া হয়।

জানা গেছে, গত সেপ্টেম্বরে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ‘কটূক্তি’র একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়। ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ১১ মিনিট ২৩ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়, বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ ছাড়াও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, হেফাজতের প্রয়াত নেতা জুনায়েদ বাবুনগরীর সঙ্গে তার সখ্য ও রাষ্ট্রীয় দুটি সংস্থা নিয়ে নানা আপত্তিকর মন্তব্য করেন মেয়র জাহাঙ্গীর।

উল্লেখ্য, ১৯৭৯ সালে ৭ মে গাজীপুরে জন্মগ্রহণ করেন জাহাঙ্গীর আলম। তিনি চান্দনা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে উত্তীর্ণ হয়ে ভাওয়াল বদরে আলম সরকারী কলেজ থেকে স্নাতক ও মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। পরে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন।

রাজনৈতিক জীবনের শুরুতে তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ গাজীপুর জেলা শাখার সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সহ-সম্পাদক ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সহ-সভাপতি ছিলেন। তিনি গাজীপুর সদর ও টঙ্গী উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ছিলেন।

জুলাই ২০১৮ সালে জাহাঙ্গীর আলম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসাবে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র নির্বাচনে নির্বাচিত হয়েছিলেন। নির্বাচনে তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে ৪,০০,০১০ ভোট পেয়েছিলেন এবং তার প্রতিদ্বন্দ্বী হাসান উদ্দিন সরকার ‘ধানের শীষের’ প্রতীক নিয়ে ১,৯৭,৬১১ ভোট পেয়েছিল।

গাজীপুরকে ‘দ্বিতীয় গোপালগঞ্জ’ বলা হয়। প্রয়াত ময়েজউদ্দীন, রহমত আলী, আহসান উল্লাহ মাস্টার এবং এখনকার মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, আজমত উল্লা খান, আখতারুজ্জামান—সবাই এ জেলার আওয়ামী লীগের ভোট ব্যাংক পাহারা দিয়েছেন। প্রবীণ এই নেতাদের মধ্যে ডাক সাইটে উঠে আসেন জাহাঙ্গীর আলম। তিনি নিজের নিজস্ব বলয় গড়েন। ঝুটের ব্যবসা করে বিপুল অর্থের মালিক বনে যান জাহাঙ্গীর। তিনি নিজের নামে একটি ফাউন্ডেশন করে সমান্তরাল একটি শক্তি সৃষ্টি করেন। এরপর ক্রমশ গাজীপুরে আওয়ামী লীগের রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসেন।

রাজনীতির বাইরে কাপড়-ব্যবসার সাথে যুক্ত জাহাঙ্গীর ‘অনারেবল টেক্সটাইল অ্যান্ড কম্পোজিট লিমিটেড’ এবং ‘জেড আলম অ্যাপারালস’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

আরো খবর »

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ককে আরও দৃঢ় করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

উজ্জ্বল হোসাইন

মহান মুক্তিযুদ্ধে ব্যবহৃত ৫৫টি ট্যাংক ও মাউন্টেন হাউটজার গান উপহার দিবে ভারত

উজ্জ্বল হোসাইন

নিম্নচাপে রূপ নিয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’

উজ্জ্বল হোসাইন