Corporate Sangbad | Online Bangla NewsPaper BD
অর্থ-বাণিজ্য

টাকার বিপরীতে বেড়েই চলছে ডলারের দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত ৩ মাস ধরে ধারাবাহিকভাবে কমছে রেমিট্যান্স প্রবাহ। অন্যদিকে বেড়ছে আমদানি ব্যয়। ফলে বৈদেশিক মুদ্রা সরবরাহে ঘাটতি দেখা দি‌য়ে‌ছে। বাড়ছে টাকার বিপরীতে ডলারের দাম।

দীর্ঘদিন স্থিতিশীল থাকার পর আগস্টের শুরুতে হঠাৎ টাকার বিপরীতে বাড়তে শুরু করে ডলারের দাম। যা এখন পর্যন্ত অব্যাহত আছে। সবশেষ আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে প্রতি ডলারের বিনিময় মূল্য দাঁড়ায় ৮৫ টাকা ৩০ পয়সা। যা এ যাবৎকালের সর্বোচ্চ। খোলাবাজার ও নগদ মূল্যে ডলার ৮৮ থেকে ৮৯ টাকার কেনাবেচা হচ্ছে।

ব্যাংক সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ায় দেশে আমদানি চাপ বেড়েছে। ফলে এর দায় পরিশোধে বাড়তি ডলার লাগছে। এ কারণে ডলারের দর বাড়ছে। তবে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে পর্যাপ্ত বৈদেশিক মুদ্রা মজুত আছে। বাজার স্থিতিশীল রাখতে ব্যাংকগুলোর চাহিদার বিপরীতে ডলার বিক্রি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, ২২ সেপ্টেম্বর থেকে ব্যাংকগুলো নিজেদের মধ্যে ৮৫ টাকা ৩০ পয়সা দরে ডলার লেনদেন করছে। মাসের শুরুতে গত ২ সেপ্টেম্বর এ দর ছিল ৮৫ টাকা ২০ পয়সা। আর গত মাসের শুরুতে আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে ডলারের দাম ছিল ৮৪ টাকা ৮০ পয়সা।

এ হিসাবে ৩৪ কর্মদিবসের ব্যবধানে ডলারের বিপরীতে ৫০ পয়সা দর হারিয়েছে টাকা। এর আগে ২০২০ সালের জুলাই থেকেই ৮৪ টাকা ৮০ পয়সা স্থিতিশীল ছিল ডলার।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, আগস্ট মাসে বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকের চাহিদা অনুযায়ী ৩০ কোটি ৫০ লাখ ডলার বিক্রি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এর আগে বাজার স্থিতিশীল রাখতে ডলার কেনায় রেকর্ড গড়েছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ২০২০-২১ অর্থবছরে ব্যাংকগুলোর কাছ থেকে সবমিলিয়ে প্রায় ৮ বিলিয়ন ডলার কিনে।

গত অর্থবছরের আগে সেটিই ছিল সর্বোচ্চ ডলার কেনার রেকর্ড। চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়েও ২০ কোটি ৫০ লাখ ডলার কেনে আর্থিক খাতের এ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

ব্যাংকগুলোর তথ্য অনুযায়ী, আমদানি দায় মেটাতে ব্যবসায়ীদের থেকে দেশি ও বিদেশি খাতের বেশিরভাগ ব্যাংক প্রতি ডলারে ৮৫ টাকা ৩৫ পয়সা পর্যন্ত নিচ্ছে। তবে নগদ ডলারের মূল্য বেশিরভাগ ব্যাংকে ৮৭ টাকার উপরে রয়েছে। কয়েকটি ব্যাংকে নগদ ডলারের মূল্য ৮৮ টাকা ছাড়িয়ে গেছে।


আরো খবর »

হিলিতে পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৪ টাকা বেড়েছে

Tanvina

হিলি বন্দরে ৩ মাসে রাজস্ব ঘাটতি ২৩ কোটি টাকা

Tanvina

নিজস্ব প্রযুক্তিগত সহায়তা পেলে অর্থনীতি আরও শক্তিশালী হবে-ডিসিসিআই সভাপতি

Tanvina