25.1 C
Dhaka
অক্টোবর ১৭, ২০১৯
Latest BD News – Corporate Sangbad | Online Bangla NewsPaper BD
শিক্ষা-সাহিত্য-সংস্কৃতি

আবরার হত্যার প্রতিবাদে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর মৌন মিছিল

কর্পোরেট সংবাদ ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদ ও হত্যায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতসহ বিভিন্ন দাবিতে আজও উত্তাল বুয়েট ক্যাম্পাস। আজ বুধবার (৯ অক্টোবর) সকাল ১০টায় বুয়েট ক্যাম্পাসে প্রথমে মৌন মিছিল এবং পরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

অধ্যাপক ড. শফিকুল ইসলাম বলেন, আবরার ফাহাদ হত্যার খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি চাই। আমার জানা মতে, এই ধরনের বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটা কোনো ধরনের নির্যাতনের লিখিত অভিযোগ পাইনি আমরা। লিখিত অভিযোগ পেলে আমরা আগে থেকে সতর্ক হতে পারি কিংবা এসব ঘটনার বিষয়ে আমরা পদক্ষেপ নিতে পারি।

বিশ্ববিদ্যালয়ে আমরা শিক্ষক ও ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ চাই। কারণ আগে আমরা দেখতাম ছাত্রদল কিংবা ছাত্র ইউনিয়নের নেতারা একই রুমে ঘুমাত। কিন্তু এখনকার পরিস্থিতি আপনারা জানেন। এই রাজনীতি কোনো শিক্ষার্থীর কল্যাণে আসে না। বরং ক্ষতি করে। তাহলে যে রাজনীতি ছাত্রদের জন্য ক্ষতিকর সে রাজনীতি তো আমাদের দরকার নেই। রাজনীতি হওয়া দরকার ছাত্রদের কল্যাণে। এ ছাড়া বুয়েট ক্যাম্পাসে ছাত্র-শিক্ষক রাজনীতি বন্ধেরও দাবি জানানো হয় সমাবেশ থেকে।

আবরার হত্যার প্রতিবাদে গত সোমবার বিকেল থেকেই উত্তাল বুয়েট ক্যাম্পাস। আবরার আন্দোলনে নামা শিক্ষার্থীরা মামলার অভিযোগপত্র না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ডাক দেন।

গতকাল রাত পৌনে ১০টায় দ্বিতীয় দিনের মতো আন্দোলন স্থগিত করেন শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনরত ১৫ ব্যাচের শিক্ষার্থী সৌমেন সিকদার সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা বুধবার সকাল ১০টা থেকে বুয়েটের শহীদ মিনারের সামনে জড়ো হব। তবে আমাদের দাবিতে কিছু পরিবর্তন আসবে। সেটা বুধবার ঘোষণা করা হবে। তবে আমাদের দাবি মানার আগ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সব কার্যক্রম বন্ধের দাবি জানাচ্ছি।

ওই ঘোষণা অনুযায়ী আজ সকাল থেকে বুয়েট ক্যাম্পাসে জড়ো হতে থাকেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। প্রথমে তাঁরা জড়ো হন বুয়েট শহীদ মিনারে জড়ো হন। সেখান থেকে মৌন মিছিল বের করা হয়। এরপর মিছিলটি পুনরায় শহীদ মিনারে মিলিত হয়। সেখানে বেলা সোয়া ১১টার দিকে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন আন্দোলনকারীরা।

এ সময় তাঁরা নতুন করে ১০ দফা দাবি উত্থাপন করেন। আন্দোলনকারীরা আগামী ১৫ অক্টোবরের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটিতে রাজনৈতিক কার্যক্রমসহ সব ছাত্র সংগঠন স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধকরণের দাবি জানান। তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজনৈতিক কার্যক্রমের জন্য অস্বস্তিতে থাকেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তাই এ কার্যক্রম নিষিদ্ধ করা হোক। দাবি মানা না হলে বড় আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন তারা।

এদিকে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় এ পর্যন্ত মোট ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। ঘটনার তদন্তের দায়িত্ব পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগকে দেওয়া হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, সহ-সভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, সাহিত্য সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, উপ-সমাজকল্যাণ সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, উপদপ্তর সম্পাদক মুজতবা রাফিদ, দুই সদস্য মুনতাসির আল জেমি ও এহতেশামুল রাব্বি তানিম এবং শামসুল আরেফিন রাফাত, মনিরুজ্জামান মনির ও মো. আকাশ হোসেন

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

আরো খবর »

দুর্নীতিবাজ কাউকে সাথে নিয়ে কাজ করবেন না: ভিপি নুর

*

বুয়েটে গণশপথ, অন্যায় রুখে দেওয়ার প্রত্যয়

*

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ

*